এবছরের সেরা ভিডিও গেম

দিন মাস পেরিয়ে অবশেষে বিদায় নিতে চলেছে আরও একটি বছর। এরই ভেতর প্রযুক্তির নানা অঙ্গনে ঘটে গেছে বেশ কিছু ঘটনা, বাজারে এসেছে নতুন নতুন প্রযুক্তি। সেই সঙ্গে এ বছর ভিডিও গেম ভক্তরাও পেয়েছেন তাঁদের পছন্দের গেমগুলোর নতুন সংস্করণ। পাশাপাশি বাজারে এসেছে এমন কিছু নতুন গেম, যা মন জুগিয়েছে ভিডিও গেমপ্রেমীদের। ২০১৭ সালের এমনই কয়েকটি সেরা ভিডিও গেমের কথা থাকছে এতে

হোয়াট রিমেইনস অব এডিথ ফিনচ

এ বছর উন্মোচন হওয়া নতুন ভিডিও গেমগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি সফলতা লাভ করে ‘হোয়াট রিমেইনস অব এডিথ ফিনচ’। অল্প বয়সী এক নারী তাঁর ছেলেবেলা কাটানো বাড়ি দেখতে একটি দ্বীপের ধ্বংসাবশেষে যায়। পত্রিকার প্রকাশনা অনুযায়ী, সেই নারী ছাড়া তাঁর পরিবারের সবাই মারা গিয়েছে। পরিবারের ওপর অভিশাপ রয়েছে বলেই এমনটা ঘটে। আর সে দ্বীপে গিয়েই নানা ভয়ানক ও ভৌতিক বিপদে পড়ে নারীটি। আর পরিবারকে সেই অভিশাপ থেকে মুক্ত করা নিয়েই এ গেমটি তৈরি করা হয়েছে। গেমটি প্লেস্টেশন ৪, উইন্ডোজ এবং এক্সবক্স ওয়ানে খেলা যায়।

দ্য লিজেন্ড অব জেলডা: ব্রেথ অব দ্য ওয়াইল্ড

জনপ্রিয় ভিডিও গেম নির্মাতা নিনটেন্ডো জন্য এ বছরটা বেশ সফলতার ছিল। তাদের সফল ভিডিও গেমের ঝুলিতে এ বছর আরও একটি গেম যোগ হয়েছে—দ্য লিজেন্ড অব জেলডা: ব্রেথ অব দ্য ওয়াইল্ড। গেমটি নির্মাতা প্রতিষ্ঠানের ৩০ বছর আগের জেলডা সিরিজেরই একটি নতুন সংস্করণ। উন্নত কাল্পনিক জগতের নকশার সঙ্গে এ গেমটিতে নানা ধাঁধার সংমিশ্রণ করেছে নিনটেন্ডো। ওপেন-ওয়ার্ল্ড ধরনের এ গেমটি খেলা যায় নিনটেন্ডো সুইচে।

গোরগোয়া

যুগ এখন উন্নত নকশার গেমের হলেও এ বছর এমন কিছু সাধারণ গেম বের হয়েছে, যা জনপ্রিয়তা পেয়েছে ব্যাপক। ধাঁধাধর্মী গেমগুলোর প্রচলন এখন খুব বেশি না থাকলেও চলতি মাসেই উন্মোচিত হওয়া গোরগোয়া ব্যাপক সাড়া ফেলেছে। গেমটি উইন্ডোজ স্টোরের জন্য বানানো হলেও এর নিনটেন্ডো সুইচ ও আইওএস সংস্করণ রয়েছে।

এভরিথিং

ভৌতিক ঘটনার সঙ্গে মিল রেখে ভূতে ধরার গল্প নিয়ে তৈরি ভিডিও গেম এভরিথিং বাজারে আসে চলতি বছরের মার্চে। গেমটিতে খেলোয়াড়ের কাছে যেকোনো কিছুকে বশে আনার ক্ষমতা রয়েছে। আর এর মাধ্যমেই গেমের বিভিন্ন ধাপ পার করতে হয়। গেমটিতে চমৎকার নকশার সঙ্গে রয়েছে বেশ লোমহর্ষক আবহ সংগীত। প্লেস্টেশন ৪ কিংবা উইন্ডোজ ও ম্যাকে খেলা যায় এই গেম।

প্লেয়ার আননোনস ব্যাটলগ্রাউন্ড

এ বছরের সেরা অনলাইন মাল্টিপ্লেয়ার গেমগুলোর মধ্যে প্লেয়ার আননোনস ব্যাটলগ্রাউন্ড গেমটি অন্যতম। ১৯৯৯ সালের একটি বিখ্যাত উপন্যাস ব্যাটল রয়াল-এর আদলে নির্মিত হয়েছে গেমটি। পরবর্তী সালে এই কাহিনি নিয়ে একই নামে চলচ্চিত্রও তৈরি করা হয়েছিল। নামের মতোই গেমটিতে অন্যান্য খেলোয়াড়ের পরিচয় গোপন থাকে। খেলোয়াড়সহ আরও ৯৯ জনকে একটি দ্বীপে প্লেন থেকে নামিয়ে দেওয়া হয়। এরপর থেকেই শুরু বেঁচে থাকার লড়াই। গেমটি উইন্ডোজ ও এক্সবক্স ওয়ানে খেলা যায়।

সুপার মারিও ওডিসি

ভিডিও গেমসের প্রচলনের শুরুর দিকের গেমগুলোর অনেকগুলোর নতুন সংস্করণ বের হয়েছে এ বছর। এর মধ্যে নিনটেন্ডো সুইচের জন্য নির্মিত সুপার মারিও ওডিসি জনপ্রিয়তার শীর্ষে ছিল। বেশ উন্নত নকশা আর আকর্ষণীয় গেম লেভেলের কারণে ভিডিও গেম ভক্তরাও পছন্দ করেছে গেমটি। তা ছাড়া আগের মারিও গেমের চরিত্র ও গল্পের অংশবিশেষও রাখা হয়েছিল গেমটিতে। গেমটি শুধু নিনটেন্ডো সুইচে খেলার জন্যই তৈরি করা হয়েছে।

ঢাকা আবহাওয়া
০১ জানুয়ারি, ১৯৭০
ফজর
জোহর
আসর
মাগরিব
ইশা
সূর্যাস্ত : ৬:০৬সূর্যোদয় : ৫:৪৪

আর্কাইভ