নতুন নেতৃত্বের দৌড়ে এক ডজন নেতা

টিটি২৪ প্রতিবেদকঃ আওয়ামী লীগের সহযোগী ও ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠন- কৃষক লীগ ও শ্রমিক লীগের মতো স্বেচ্ছাসেবক লীগেও আসছে নতুন নেতৃত্ব। সংগঠনটির শীর্ষ দুই পদে পরিবর্তনের আভাসে সম্ভাব্য প্রার্থীদের মধ্যে সৃষ্টি হয়েছে চাঙ্গা ভাব। নতুন নেতৃত্বের দৌড়ে এক ডজন নেতা এগিয়ে আছেন। আওয়ামী লীগ সূত্রে জানা গেছে এসব তথ্য।

কমিটিতে পরিবর্তন আসছে জানিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের যুগান্তরকে বলেন, নতুনদের উদ্ভাবনী শক্তি আর পুরনোদের অভিজ্ঞতার সমন্বয়ে কমিটি হবে

স্বচ্ছ ভাবমূর্তির নেতারাই কমিটিতে স্থান পাবে। আমাদের দলীয় সভাপতি স্বেচ্ছাসেবক লীগসহ অন্যান্য সহযোগী সংগঠনকে সেভাবেই সাজাচ্ছেন। ২৩ অক্টোবর স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি অ্যাডভোকেট মোল্লা মো. আবু কাওছারকে সংগঠন থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে

এর একদিন পর সংগঠন ও সম্মেলনের সব কার্যক্রম থেকে সাধারণ সম্পাদক পংকজ দেবনাথকে বিরত থাকার নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী। ক্যাসিনো অভিযান শুরু হলে এর সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকার অভিযোগ ওঠে মোল্লা মো. আবু কাওছারের বিরুদ্ধে। নিজ নির্বাচনী এলাকায় (বরিশাল-৪) অন্তর্কোন্দলসহ স্বেচ্ছাসবক লীগে নানা অনিয়মের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে সাংগঠনিক কার্যক্রম থেকে বিরত রাখা হয়েছে পংকজ দেবনাথকে

সংগঠনটির শীর্ষ দুই নেতার বিরুদ্ধে উত্থাপিত অভিযোগের কারণে তাদের নতুন কমিটিতে স্থান হচ্ছে না- এমনটি নিশ্চিত করেছেন ক্ষমতাসীন দলের একাধিক নীতিনির্ধারক। এমন খবরে দৌড়ঝাঁপ শুরু করেছেন পদপ্রত্যাশীরা। লবিংয়ে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন ত্যাগী ও দলের প্রতি নিবেদিত স্বচ্ছ ভাবমূর্তি নেতা- যারা এতদিন গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পাওয়া থেকে বঞ্চিত ছিলেন

১৬ নভেম্বর শনিবার সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে স্বেচ্ছাসেবক লীগের জাতীয় সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। সম্মেলনের উদ্বোধন করবেন আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সংগঠনটির সম্মেলনকে কেন্দ্র করে সোমবার ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ও মঙ্গলবার ঢাকা মহানগর উত্তরে সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। ঢাকা মহানগরের এই শাখা দুটিতে নেতৃত্বে কারা আসছেন তা জানা যাবে শনিবারই। দীর্ঘ সাত বছর পর স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় সম্মেলন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। আর ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হল প্রায় ১৩ বছর পর

জানতে চাইলে স্বেচ্ছাসেবক লীগের প্রথম সভাপতি বাহাউদ্দিন নাছিম বলেন, যারা স, যাদের স্বচ্ছ ভাবমূর্তি রয়েছে, সাহসী ও দুঃসময়ে সংগঠনের জন্য কাজ করেছে, তাদের খুঁজে বের করে নেতা নির্বাচিত করা হবে। যারা দীর্ঘদিন ধরে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ধারণ করে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সংগঠনের জন্য কাজ করছে, তাদের মাঝ থেকেই অপেক্ষাকৃত তরুণ নেতাদের সামনে আনা হবে

আওয়ামী লীগ সূত্রে জানা গেছে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ আওয়ামী লীগের হাইকমান্ড সংগঠনকে আরও গতিশীল করতে ত্যাগী ও দক্ষ নেতাদের স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতৃত্বে নিয়ে আসতে চাইছেন

বিশেষ করে সাম্প্রতিক ক্যাসিনোকাণ্ড এবং দুর্নীতি, চাঁদাবাজি ও টেন্ডারবাজির মাধ্যমে সহযোগী-ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনের কোনো কোনো নেতার অঢেল সম্পদের মালিক বনে যাওয়ার প্রেক্ষাপটে স্বচ্ছ ও পরিচ্ছন্ন ভাবমূর্তির নেতাদেরই শীর্ষ পদে নিয়ে আসার তাগিদ রয়েছে

এ অবস্থায় সংগঠনের বর্তমান নেতৃত্ব ও সাবেক ছাত্রলীগ নেতাদের মধ্যে যাদের গায়ে এখনও কলঙ্কের দাগ লাগেনি, এমন নেতাদেরই ওই দুটি পদে আনার সম্ভাবনা দেখছেন পদপ্রত্যাশীরাও। নানা কারণে বিতর্কিতদের বাদ দিয়ে অতীতে আন্দোলন-সংগ্রামে ভালো ভূমিকা রয়েছে- এমন নেতারাই গুরুত্বপূর্ণ পদ-পদবি পাবেন বলেও তাদের প্রত্যাশা

সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক পদ পেতে শতাধিক স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা মাঠে তপর রয়েছেন। এর মধ্যে নেতৃত্বের দৌড়ে এগিয়ে আছেন এক ডজন নেতা। সভাপতি পদে এগিয়ে আছেন সংগঠনের জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি ও সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক নির্মল রঞ্জন গুহ এবং আরেক সহসভাপতি মতিউর রহমান মতি। এছাড়া সহসভাপতি মঈন উদ্দীন মঈন, আফজালুর রহমান বাবুর নামও সভাপতি পদে আলোচনায় আছে

সাধারণ সম্পাদক পদে সংগঠনের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির সদস্য সচিব মেজবাহ উদ্দিন সাচ্চুর নাম শোনা যাচ্ছে। এছাড়া এ পদে যাদের নাম শোনা যাচ্ছে, তাদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলেন- সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ও স্বেচ্ছাসেবক লীগের বর্তমান কমিটর চার সাংগঠনিক সম্পাদক- খায়রুল হাসান জুয়েল, শেখ সোহেল রানা টিপু, সাজ্জাদ শাকিব বাদশা ও আবদুল আলীম বেপারি। টিপু ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এবং সাজ্জাদ শাকিব বাদশা সাধারণ সম্পাদক

চারজনই বিএনপি-জামায়াত জোট ও ১/১১ সরকারের আমলে ছাত্রলীগকে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছেন। এছাড়া সংগঠনটির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি শেখ মো. নুরুজ্জামান, মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক সম্পাদক রফিকুল ইসলাম লিটন, দফতর সম্পাদক সালেহ মোহাম্মদ টুটুলের নামও আলোচনায় আছে

সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক ও সভাপতি প্রার্থী নির্মল রঞ্জন গুহ যুগান্তরকে বলেন, সংগঠনের শুরু থেকেই আছি। দলের দুর্দিনে স্বেচ্ছাসেবক লীগের ব্যানারে রাজপথে ছিলাম। এখনও আছি। আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আস্থা ও বিশ্বাস রেখে আমাকে সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক করেছেন। আমার ওপর অর্পিত দায়িত্ব পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে পালনের চেষ্টা করছি। তিনি আমাকে যে দায়িত্ব দেবেন তাই পালন করব

প্রায় একই ধরনের অভিমত ব্যক্ত করে সংগঠনের সহসভাপতি ও সভাপতি প্রার্থী মতিউর রহমান মতি যুগান্তরকে বলেন, ছাত্র রাজনীতি করে নেতৃত্বের পরীক্ষা দিয়ে আজ স্বেচ্ছাসেবক লীগে এসেছি। কোনো অনিয়ম-দুর্নীতিকে প্রশ্রয় দেইনি। নেতৃত্বের স্থানে দলীয় নেত্রীর সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত

টিটি২৪/যু/আ হা/৩৭৪

ঢাকা আবহাওয়া
০১ জানুয়ারি, ১৯৭০
ফজর
জোহর
আসর
মাগরিব
ইশা
সূর্যাস্ত : ৬:০৬সূর্যোদয় : ৫:৪৪

আর্কাইভ