বিপিএল এ ক্রিকেট বেটিং বন্ধে দরকার নতুন আইন ও সচেতনতা

বাংলাদেশ ক্রিকেট সাপোর্টারস অ্যাসোসিয়েশন (বিসিএসএ) এর উদ্যোগে আজ রাজধানীর বেসিসের সভাকক্ষে ‘ক্রিকেট বেটিংয়ের কালো ছায়ায় যুব সমাজ : বাস্তবতা ও করণীয়’ শীর্ষক এক গোলটেবিল আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়েছে। মূলত জুয়া ও ক্রিকেটে জুয়ার কারণে যে যুবসমাজ ক্ষতিগ্রস্থ হবার হাত থেকে সচেতনতার লক্ষ্যে সম্মিলিত ভাবে কাজ করার প্রত্যয় নিয়ে এই আয়োজন। বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠান ও সংগঠনের কর্তাব্যক্তিরা উক্ত আলোচনা অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে নিজেদের মন্তব্য তুলে ধরেন। উক্ত আলোচনায় ক্রিকেট বেটিং বা স্পোর্টস জুয়া প্রতিরোধে কার্যকর আইন প্রনয়ণ, অনলাইন বেটিং সাইট বন্ধে বিটিআরসিকে অনুরোধ জনানো এবং বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড ও খেলোয়াড়দের এই সংক্রান্ত সচেতনতায় এগিয়ে আসার আহবান জানানো হয়।

এছাড়া আইন প্রয়োগকারী সংস্থাকে কঠোর ও কার্যকরী বব্যনসস্ত সিনতে দাবী জানানো হয় গোলটেবিল আলোচনায় অংশ নেন বাংলাদেশ ক্রীড়া লেখক সমিতির সভাপতি মোস্তফা মামুন, দৈনিক প্রথম আলোর সিনিয়র স্পোর্টস রিপোর্টার পবিত্র কুন্ড, দৈনিক কালের কন্ঠের ক্রীড়া সাংবাদিক নোমান মোহাম্মদ, যমুনা টিভির সিনিয়ার রিপোর্টার তাহমিদ অমিত, রেডিও ভূমি’র স্টেশন চীফ শামস সুমন, জাগো এফএম এর কমেন্ট্রি কো-অর্ডিনেটর, এস. এ. আব্দুস শাকুর, ক্রীড়া সাংবাদিক ফয়সাল তিতুমীর, বাংলাদেশ আইপি ফোরামের ব্যরিস্টার এবিএম হামিদুল মিসবাহ, বেসিস এর পরিচালক মোস্তাফিজুর রহমান সোহেল, ইউনিভার্সিটি আইটি সোসাইটি প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি আব্দুল্লাহ আল ইমরান এবং নাইন স্পোর্টস এন্ড মার্কেটিং-এর প্রতিষ্ঠাতা সিইও নাফিজ আহমেদ মোমেন।

বক্তারা আশংকা ব্যক্ত করেন যে, এভাবে ক্রিকেট জুয়ার প্রভাব বাড়তে থাকলে ভবিষ্যতে বাংলাদেশের ক্রিকেট সমর্থকদের যে সুন্দর ভাবমূর্তি আছে, তা নষ্ট হবে এবং ক্রিকেট তার সৌন্দর্য হারাবে। যুবসমাজ কে ক্রিকেট বেটিংয়ের এর কুপ্রভাব সম্পর্কে সচেতনতা বাড়াতে স
ঢাকা আবহাওয়া
০১ জানুয়ারি, ১৯৭০
ফজর
জোহর
আসর
মাগরিব
ইশা
সূর্যাস্ত : ৬:০৬সূর্যোদয় : ৫:৪৪

আর্কাইভ